Home National ৩ দিনের রিমান্ডে ইভ্যালির চেয়ারম্যান-এমডি

৩ দিনের রিমান্ডে ইভ্যালির চেয়ারম্যান-এমডি

24
0
SHARE

ইভ্যালির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ রাসেলর ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম এই আদেশ দেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা গুলশান থানার উপ-পরিদর্শক ওয়াহিদুল ইসলাম ১০ দিনের রিমান্ড চেয়েছিলেন। অন্যদিকে, আসামিপক্ষের আইনজীবী রিমান্ড বাতিলের আবেদন করেন।অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে গুলশান থানায় দায়ের করা একটি মামলার প্রেক্ষিতে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে আলোচিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির এই দুই শীর্ষ কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর আজ শুক্রবার আনুষ্ঠানিক ব্রিফিং করে র‌্যাব। এরপরই দুপুর আড়াইটার দিকে তাদেরকে আদালতে তোলা হয়।র‌্যাবের ব্রিফিংয়ে জানানো হয়েছে, গ্রাহককে ধোঁকায় ফেলতে ব্যবসার নেতিবাচক স্ট্র্যাটেজি গ্রহণ করেন ইভ্যালির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ রাসেল। তারা দুজন প্রতিষ্ঠানটি থেকে ৫ লাখ করে ১০ লাখ টাকা বেতন নিতেন। চড়তেন দামি গাড়িতে। গত কয়েক বছরে সাভারে কোটি কোটি টাকা সম্পদ গড়েছেন রাসেল।

ইভ্যালির বিরুদ্ধে গত প্রায় দুই মাস ধরে একের পর এক প্রতারণার অভিযোগ আসতে থাকে। সেই ধারাবাহিকতায় গত বুধবার রাতে গুলশান থানায় একটি মামলা দায়ের করেন আরিফ বাকের নামে এক ভুক্তভোগী। তিনি বলেন, আমরা তিন বন্ধু মিলে ইভ্যালিতে ২০ লাখ টাকার পণ্য অর্ডার করেছি। পণ্য না দিয়ে উল্টো তারা এখন হুমকি-ধমকি দিচ্ছে।

ভুক্তভোগী আরিফ বাকের বলেন, ইভ্যালির চমকপ্রদ বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়ে আমরা তিন বন্ধু কিছু পণ্য অর্ডার করেছিলাম গত মে মাসে। একজন ৩ লাখ ১০ হাজার, একজন ৯ লাখ এবং আরেকজন ৭ লাখ ৯৮ হাজার টাকার পণ্য অর্ডার করি। অর্ডারের সব টাকা বিকাশ, নগদ ও সিটি ব্যাংকের মাধ্যমে পরিশোধ করা হয়। নিয়মানুযায়ী পণ্যগুলো ৭ থেকে ৪৫ দিনের মধ্যে পরিশোধ করার কথা।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পণ্যের জন্য নানাভাবে যোগাযোগ করেও ব্যর্থ হই। ৯ সেপ্টেম্বর সশরীরে ইভ্যালির ধানমন্ডির অফিসে উপস্থিত হয়ে পণ্য ডেলিভারির ব্যাপারে জানতে চাইলে তারা আমাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে। একপর্যায়ে ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ রাসেল আমাদেরকে হুমকি-ধমকি দেন। পণ্য বা টাকা-কোনোটিই দেওয়া হবে না বলে চিৎকার করতে থাকেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here